Tag Archives: annapurnachakraborty

আপ লোডিং লাইফ ……… #unedited #candid

আমি  যখন  এই  ব্লগ-টা  খুলেছিলাম  ভেবেছিলাম  রোজ  কিছু  না  কিছু  লিখব  কিন্তু  সেটা  হয়ে  ওঠে  নি …. যারা বলে যদি কেউ কিছুকে  সত্যি সত্যি  ভালবাসে তাহলে তার জন্য ঠিক সময় বের করে নেয় ….তারা মিথ্যে বলে……… আমি সব থেকে বেশি লিখতে ভালবাসি.. যখন ছোট ছিলাম ঠিক করে রিডিং পরতেও শিখিনি ; আমায় কেউ জিজ্ঞেস করলে আমি বলতাম আমি বড় হয়ে  রাইটার হব ……. তখন থেকেই আমি যেখানে যেতাম… যা কিছু দেখতাম বা শুনতাম.. আমার চারপাশের মানুষজন তাদের হাসি কান্না ভালোলাগা সবকিছুর মধ্যেই আমি স্বপ্ন খুজতাম… এখনো খুঁজি .. যাতে সব এলোমেলো স্বপ্ন গুলো কে আমি সাজিয়ে রাখতে পারি আমার মনের  খাতায়……..
কিন্তু এখন আমি লিখি যখন খুব বোর হই  বা যখন  মাঝরাতে ঘুম  আসে  না .. কিম্বা  হটাত  করে  বৃষ্টি  দেখে  মনকেমন  করলে ….

……………………………………………………………………………………
আজকের  এই  লেখাটার  কোনো  মানে  নেই … সব  কিছুর  যে  মানে  থাকতে  হবে  তার  কোনো  মানেও  নেই …….
জীবন   তো  অনেকটা  ফটো  তোলার  মতো  ..পারফেক্ট  মোমেন্ট  গুলোকে  ধরে  রাখতে  গিয়ে  কতো হাজার  হাজার  মুহূর্ত  মিস  হয়ে  যায় …তবুও  আফসোস  করতে  নেই ….বেস্ট  পিকচারটা filter করে  upload করার  নামই  বোধহয়  লাইফ ………..  😀 😀

Copyright ©ANNAPURNA CHAKRABORTY, All Rights Reserved

ভিজতে আমি রাজি

PicsArt_1427658106563

দুটো কথা বলতে গিয়ে বাড়তি কিছু কথার ভিড়ে
শোনা হয়নি  যেসব হাজার হাজার কথা …
আজকে সেসব নাইবা হলো নতুন করে শোনা
Backdated খুব পুরনো গন্ধে মোড়া গল্পগুলো
দিনের শেষে রাতের দেশে যদি বৃষ্টি সেজে নামে…
তুমি কি “ভিজতে আমি রাজি ” বলে বন্ধ করবে ছাতা ?

Copyright ©ANNAPURNA CHAKRABORTY, All Rights Reserved

Will miss you Orkut!!! :(

আচ্ছা এমন কেনো হয়? যখন কিছু হারিয়ে যায় আমদের জীবন থেকে আমরা সেটাকে ধরে রাখতে চাই …এই যেমন আজ আমার হটাত করে মনে পড়ল আর 5minit পর অর্কুট চির জীবনের মত হারিয়ে যাবে  …  ভেবেছিলাম একটা স্ক্রাপ লিখব শেষ বারের মত …. তাড়াতারি orkut_e. ঢুকতে গিয়ে দেখি এখানেও লেট করে ফেলেছি আমি ..আমার প্রথম ভার্চুয়াল world_e তৈরী করা ঘরটা আর নেই … আমার  হারিয়ে যাওয়া গুচ্ছ গুচ্ছ স্ক্রাপ গুলোয় লুকিয়ে ছিল কত গল্প .. .ভীষণ বাজে ক্যামেরায় তোলা আমার প্রথম profile picture.. আমার প্রথম লেখা স্ক্রাপ সব কিছু হারিয়ে গেল ……ভেবেছিলাম আমি চাইলেই ফিরে যাব পুরনো গল্পে .. পুরনো গন্ধে আর পুরনো স্ক্রাপ _এর আড্ডায় .. …. কিন্তু ………

আজ আমার মন খারাপ ..হ্যা হ্যা আমি জানি আমার আর ফিরে যাওয়া হয় নি orkut_e 2011_এর পর থেকে …হয়ত আর কখনো যেতাম না সেখানে …. তাই আজ বোধহয় মন খারাপ করাও পাপ ….. Sorry orkut! আমার লাস্ট স্ক্রাপ টা আর লেখা হলো না তোমাকে …. Will miss u! 🙁

Copyright ©ANNAPURNA CHAKRABORTY, All Rights Reserved

চাঁদেও তো দাগ আছে

আচ্ছা আর কার কার আমার মত মেলায় গিয়ে হারিয়ে যেতে ইচ্ছে করে ? না না আমি কখনো কোথাও হারিয়ে যায়নি.. অনেক না পাওয়ার ভীড়ে আমার এই হারিয়ে যাওয়ার ইচ্ছেটাও হারিয়ে গেছে … ও বলতে ভুলে গেছি আজ আমি কেন হঠাত মেলা নিয়ে লিখছি.. আমাদের পাড়ায় রোজ এইসময় মেলা হয় … এবারেও হচ্ছে.. বাড়ির পাশে মেলা, সেখানে রোজ বিকেলে নিয়ম করে না গেলে নিজেকে কেমন অপরাধী মনে হয় … তাই রোজ যাই  চিকেন রোল, পাপড়ি চাট , ফুচকা ,ঘুগনি, আর আইস ক্রিম খেতে… পাড়ার সবাই যখন দেখায়  তারা আশ্চর্য সব জিনিস কিনেছে এই মেলা থেকে.. নিজের উপর খুব রাগ হয় আচ্ছা আমি কি অন্ধ.. কখনো কি ফুচকা, চিকেন রোল থেকে চোখ তুলে তাকাতে পারব না .. এত বছরে একটা আশ্চর্য কিছু চোখে পড়ল না আমার কেনার মত… কিন্তু এবার মেলায় গিয়ে দিদির একটা গাছ টাইপের দেখতে শো-পিস পছন্দ হয়.. এইটা ওই আশ্চর্য টাইপের কাছাকাছি কিছু একটা  ভেবে খুব বার্গেনিং শুরু করি (কারণ ওটা রিচুয়াল) দোকানদারের সাথে .. ১৬০ এর জিনিস ১২০ তে নামাই..জিনিস টা  প্যাক করতে করতে দোকানদার এক গাল হেসে  বলে, “খুব ভালো জিনিস পেয়ে গেলেন  এত কম দামে..সারা জীবনেও এই জিনিসের কিছু হবে না ” .এক রাশ ভালোলাগা নিয়ে বাড়িতে এসে দেখি জিনিসটা থার্মোকলের আর পেছন টা অল্প ভাঙ্গা… এ মা.. তখন যে অত করে দেখলাম চোখে পড়ল না তো.. সবাই বলল খুব ঠকে গেছি …IMG_20140604_215920খুউব সাবধানে রাখতে হছে আমার এত দিনের অপেক্ষার পর পাওয়া আশ্চয জিনিসটাকে ..তাতে কি? কেউ ঠিকই বলিছিল “চাঁদেও তো দাগ আছে”…

ভেবেছিলাম রাগ করব, কিন্তু করা হলো না

ভেবেছিলাম রাগ করব, কিন্তু করা হলো না..
ভেবেছিলাম আজ বৃষ্টি হবে ভিজব খুব..
ভেবেছিলাম তোর্ কথা আজ তোকেই শোনাব, চুপটি করে শুনবি তুই …
ভেবেছিলাম আজ নতুন কোনো স্বপ্ন দেখব, কিন্তু দেখা হলো না…

Copyright ©ANNAPURNA CHAKRABORTY, All Rights Reserved

যে শহর ম্যাজিক দেখায় সন্ধে নামার আগে

আচ্ছা কলকাতা কে কেন আমি এত ভালবাসি ? কি আছে এই শহরে …আর পাঁচটা শহরের মত এই শহরেও তো রোজ একটা ঝা-চকচকে সন্ধে নামে.. শপিং মলগুলোর গা বেয়ে হাসি চুইয়ে পরে বৃষ্টির মত… রাস্তার পাশে দাড়িয়ে কোনো একটা মেয়ে ফুচকা খেতে খেতে তার বন্ধুকে বলে “এটা হলো এই শহরের বেস্ট ফুচকার দোকান. এই ফুচকা কাকুর হাতে না জাদু আছে”… একটা হইচই করা বন্ধুদের দল রোজ কলকাতায় আসে কোনো না কোনো কাজে.. তাদের হাসি , ঠাট্টা আর ইয়ার্কি- তে নতুন ভাবে জেগে ওঠে সেই কবেকার পুরনো এই শহরটা .. কলকাতা আবার নতুন করে মডার্ন হয় যখন এই শহরেরই কোনো এক গলি তে লুকিয়ে থাকা কোনো কবি নতুন ভাবনার কোনো কবিতা লেখে…. প্রতি শীতের সকালে যখন প্রিন্সেপ ঘাটে সবাই যায় শুধু ফটো তুলে ফেসবুকে আপলোড করবে বলে , নৌকোয় উঠে যখন তারা টাইটানিক এর পোজ দিয়ে এই শহরকে ফিল্মি বানায়…তখনও এই শহর রাগ করে না.. বরং মুচকি হেসে প্রশয় দেয় … তবুও আমার এই শহর টাকে বিনা দোষে কত মানুষের গালি সহ্য করতে হয় .. “রাস্তায় এত জ্যাম এই শহরের কিছু হবে না” , “বাংলা বন্ধ দূর এই শহরে মানুষ থাকে” আরো কত কি .. সেসব কথা এ-শহর মনে রাখে না …সব ভুলে সে তার প্রতিটা বিকেল আরো ম্যাজিকাল করার চেষ্টা করে… যখন এক বিকেল এ বাইপাস এর রাস্তার সব আলো একসাথে জলে উঠতে দেখে মুদ্ধ হওয়া একটা মেয়ে মনে মনে ভাবে “যে যাই বলুক আমি আমার এই শহরকে ছেড়ে কখনো কথাও যাব না …আমি জানি আমি চলে গেলে এই সুন্দর বিকেল, ঝলমলে সন্ধে আর রাগী দুপুর গুলো আমাকে খুব মিস করবে” আর তখনি এই শহরের আকাশের কোনে কালো মেঘ জমে ওঠে.. যদিও বৃষ্টিতে ভিজলে কলকাতা কে আরো সুন্দর লাগে ..কিন্তু আজ যেন বৃষ্টি না হয় .. আমি চাই না সবাই জানুক আমার এই শহরটা বাইপাস এর রাস্তায় দাড়িয়ে থাকা মেয়েটার চেয়েও বেশি emotional….

Copyright ©ANNAPURNA CHAKRABORTY, All Rights Reserved