হ্যাপি বার্থ ডে রবি ঠাকুর

আজ রবি ঠাকুরের জন্মদিন.. ছোটবেলায় এই দিনটা আমার কাছে খুব স্পেশাল ছিল.. আমাদের পাড়ায় প্রতিবছর খুব যত্ন করে রবীন্দ্র জয়ন্তী পালন হত .. সেবার ঠিক হলো নাটক হবে ..সবাই খুব excited .. অডিশন শুরু হলো.. কিন্তু আমি কোনো রোল পেলাম না… সেই গরেমের বিকেলে আমার মুখটা বোধহয় বর্ষার মেঘের মতো কালো হয়ে গেছিল .. তাই কেউ কেউ এসে আমায় বোঝালো “তুই তো খুব ছোট, তাই তোকে নাটকে নেওয়া হয়নি.. কত কষ্ট হবে জানিস, এবার থেকে রোজ বিকেলে রিহার্সাল.. ডায়লগ মুখস্ত করা আরো কত কি … তার চেয়ে তুই কবিতা বল″……হুম কবিতাই বলেছিলাম আমি .. চার লাইন এর ছোট একটা কবিতা ..আর তার কিছুক্ষণ পর ঝেপে বৃষ্টি নেমেছিল ঠিক নাটক শুরু হওয়ার আগে.. আমার মনে হয়ে ছিল আমার মতো ঠাকুরেরও বোধহয় মন খারাপ ..আমি শুনেছিলাম ঠাকুরের যখন মন খারাপ হয় তখনি বৃষ্টি নামে .. .তখন আমি রবীন্দ্রনাথ কে সত্যিকারের ঠাকুর ভাবতাম.. যেমন দূর্গা ঠাকুর, লক্ষ্মি ঠাকুর তেমনি রবি ঠাকুর.. ঠাকুর নাহলে কি সবাই একসাথে এভাবে কারোর বার্থ ডে সেলিব্রেট করে… ঠাকুর না হলে কি কারোর জন্মদিনে প্রতিবছর বৃষ্টি হয় (তখন প্রতি বছর রবীন্দ্রজয়ন্তী তে বৃষ্টি হতো)..
তারপর অনেক গুলো রবীন্দ্র জয়ন্তী পেরিয়ে আমি বড় হয়ে গেলাম … আগের বছর এইদিন এ আমার পাশের বাড়ির বাচ্চা মেয়েটা আমার বিছানায় শুয়ে পা নাচাতে নাচাতে বলেছিল “জানিস আজ বিকেলে না বৃষ্টি হবে” আমি জিগেস করেছিলাম “তোকে কে বললো?” ও আমার দিকে অবাক হয়ে তাকিয়ে বলেছিল ” তুই এটাও জানিস না.. আজ তো ঠাকুরের হ্যাপি বার্থ ডে .. আর ঠাকুরের হ্যাপি বার্থডে-তে তো বৃষ্টি হয়ই “

Copyright ©ANNAPURNA CHAKRABORTY, All Rights Reserved

Comments

Leave a Reply